বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার নাওমি ওসাকা 

Published: Mon, 07 Sep 2020 | Updated: Mon, 07 Sep 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : ইউএস ওপেনের শুরু থেকেই বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে খুব সোচ্চার নাওমি ওসাকা। প্রতিবাদ জানাতে অভিনব এক পন্থাই অবলম্বন করছেন সাবেক ইউএস ওপেন জয়ী। করোনাকালে কোর্টে হাজির হচ্ছেন বিভিন্ন নামাঙ্কিত মাস্ক পরে। অনেকেই জানতে চাইছেন, কেন এমনটি করছেন ওসাকা? 

হাইতিয়ান বাবা ও জাপানি মায়ের এই সন্তান বর্ণবাদের প্রতিবাদ জানাতে সেসব নামগুলোই ব্যবহার করছেন, যারা যুক্তরাষ্ট্রে মর্মান্তিকভাবে এসব ঘটনার শিকার হয়ে মারা গেছেন। টুর্নামেন্টের শেষ ষোলোতেও এর ব্যতিক্রম হলো না। কন্তাভেইতের বিপক্ষে কোর্টে নামার সময় এবার তিনি মাস্কে ব্যবহার করেছেন ট্রেভন মার্টিনের নাম। 

২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে, ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে ১৭ বছর বয়সী মার্টিনকে গুলি করে হত্যা করেন স্থানীয় নাগরিক নিরাপত্তা সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবী জর্জ জিমারম্যান (২৯)। জিমারম্যানের ভাষ্য ছিল, তিনি আত্মরক্ষার্থে গুলি করেছিলেন! ওসাকা অবশ্য আগেই বলেছেন, অভিনব এই প্রতিবাদ জানানোর মানেই হলো সবাইকে বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে সচেতন করে তোলা। 

তিনি আরও বলেছিলেন, তার কাছে সাতটি নামাঙ্কিত মাস্ক রয়েছে। যার সবগুলোই তিনি ব্যবহার করতে চান। অবশ্য এমন উদ্যোগকে বাস্তবে রুপ দিতে প্রতিপক্ষকে একেবারে উড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যই নিয়েছেন ২০১৮ সালের এই চ্যাম্পিয়ন। যাতে তিনি ফাইনাল পর্যন্ত সবগুলো নামই ব্যবহার করতে পারেন। 

কন্তাভেইতকে তিনি হারিয়ে দিয়েছেন সরাসরি সেটে ৬-৩, ৬-৪ গেমে। কোয়ার্টার ফাইনালে তার প্রতিপক্ষ শেলবি রজার্স। যার কাছে তিনবার হেরেছেন ওসাকা। 

তবে এমন প্রতিপক্ষকে সামনে পেয়েও খুব সতর্ক দুটি গ্র্যান্ড স্ল্যামের এই মালিক, ‘অনেক দিন ধরে তার বিপক্ষে খেলা হয়নি। তার পরেও আমি ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করবো। তাকে যেহেতু কখনো হারাতে পারিনি, তাই নিজেকে আন্ডারডগই মনে হচ্ছে।’

আইআর /