রিফাত হত্যার অপ্রাপ্তবয়ষ্ক আসামিরা আদালতে

Published: Tue, 27 Oct 2020 | Updated: Tue, 27 Oct 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামিকে আদালতে নেয়া হয়েছে। সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে তাদের আদালতে আনা হয়। 

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বরগুনা শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এ মামলার রায় দেবেন বলে ঘোষণা করেছিলেন। 

এরই মধ্যে কিশোর সংশোধন কেন্দ্র থেকে ছয়জন আসামিকে আদালতে উপস্থিত করা হয়েছে। এছাড়া জামিনে থাকা আট কিশোরও আদালতে হাজির হয়েছেন বলে আইনজীবীরা জানিয়েছেন। মামলা সংশ্লিষ্টরা ছাড়া অন্যদের আদালতে প্রবেশে বিধিনিষেধ আরোপ করে এর প্রাঙ্গণে সীমানা চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছে। কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণে আদালতে ঢুকতে পারেননি আসামিদের স্বজনেরাও।

রিফাত হত্যা মামলায় ১৪ অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামির বিপক্ষে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বিচারিক আদালতের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল। এছাড়া আসামিপক্ষের আইনজীবী, শাহজাহান মিয়া, নারগীস পারভীন সুরমা, গোলাম মোস্তফা কাদের প্রমুখ।

রাষ্ট্রপক্ষের সরকারি কৌঁসুলি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে সব তথ্য–প্রমাণ উপস্থাপন করেছি। আমরা আদালতকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। আশা করি, এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সব আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।’

আসামিক্ষের আইনজীবী নারগিস পারভিন সুরমা বলেন, ‘অন্য আর উৎসুক মানুষের মতো আমার মক্কেলও ঘটনাস্থলে শুধু উপস্থিত ছিল। এছাড়া হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে এবং হত্যাকাণ্ডে জড়িত আসামিদের সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক বা যোগাযোগ ছিল না এবং এ বিষয়ে কোনো প্রমাণও আদালতে কেউ উপস্থাপন করতে পারেনি’।

গত ১৪ অক্টোবর এ মামলার দুই পক্ষের যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান রায়ের জন্য মঙ্গলবার দিন ধার্য করেন।

গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত হত্যাকাণ্ড ঘটে। ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্ত ও অপ্রাপ্তবয়স্ক দু’ভাগে বিভক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ। এরমধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।

গত ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার শিশু আদালত। এরপর ১৩ জানুয়ারি থেকে অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করেন। মোট ৭৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে এ মামলায়।

এর আগে গত ৩০ সেপ্টেম্বর এ মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির রায় ঘোষণা করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান। রায়ে নিহত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ছয়জনের ফাঁসির আদেশ দেন। আর বাকি চারজনকে বেকসুর খালাস দেন।

/এসিএন