বেতের আসবাবে নান্দনিক গৃহসজ্জা

Published: Thu, 19 Mar 2020 | Updated: Thu, 19 Mar 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : সারাদিন কাজ শেষ করে স্বস্তির আশ্বাসে সবাই ঘরে ফেরে। সবার প্রত্যাশা থাকে তার বাসস্থানটি হোক মনের মতো করে সাজানো গোছানো। আর তাই প্রয়োজন সাধ্যের মধ্যে মনের মতো ডিজাইনের কিছু আসবাব। অফিস বা বাসা সাজানোর জন্য সব সময় দামি আসবাবের প্রয়োজন পড়ে না, স্বল্প খরচেই ব্যবহার করা যেতে পারে ভিন্ন ডিজাইনের বেতের আসবাব।

অন্যান্য আসবাবের তুলনায় বেতের আসবাবের দাম কম। ওজনে হালকা হওয়ায় বহন করা আনেকটা সহজ। বার্ণিশ করা বেতের আসবাব দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি টেকসই ও মজবুত। এনামেল পেইন্ট ব্যবহারে এটা দেখতে আরও আকর্ষণীয় লাগে। বেতের আসবাব ব্যবহারের আগে ঠিক করে নিতে হবে কোথায় কোনটি রাখবেন।

ড্রইংরুমে বেতের তৈরি সোফা ব্যবহার করতে পারেন। বেতের ছোফার সঙ্গে মিল রেখে গ্লাস টব টেবিল ব্যবহার করলে রুমটি দেখতে সুন্দর লাগবে। শোবার ঘরে কাঠ এবং স্টিলের আসবাবের পাশাপাশি ব্যবহার করতে পারেন বেতের সিঙ্গেল এবং ডাবল খাট। থাকতে পারে বেতের একটি বইয়ের তাক। বেতের ফুলদানিসহ ডিজাইন করা আয়নাও রাখতে পারেন। এ ছাড়া বেতের মোড়া, চেয়ার, ইজি চেয়ারও থাকতে পারে।

বারান্দা কিংবা বাগানে বসার জন্য বেতের আসবাব বেশ মানানসই। বারান্দাতে বসার জন্য থাকতে পারে চেয়ার কিংবা মোড়া। বেতের তৈরি দোলনার চাহিদা আদিকাল থেকেই, ঝোলানোর জায়গা থাকলে অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন। বরান্দাতে স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে বেতের তৈরি ঝুড়ি।

অফিসে বা রেস্টুরেন্টে দেশীয় ঐতিহ্যকে উপাস্থাপন করতে ব্যবহার করা যেতে পারে বেতের আসবাব। রিসিপশন, ওয়েটিং এরিয়া, মিনি কনফারেন্স রুমে বেতের ছোফা বা অন্যান্য আসবাব ব্যবহার করতে পারেন। বেতের আসবাবের দাম নির্ভর করে তার আকার এবং ডিজাইনের উপর।

বেতের তৈরি ছোট একটি জিনিসের মূল্য ৫০ টাকা থেকে শুরু করে বড় আসবাবের দাম ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। রাজধানীর পান্থপথ, মোহাম্মদপুর, নবাবপুর, কাজীপাড়া, শেওড়াপাড়াসহ ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় বেতের তৈরি ভিন্ন ডিজাইনে ছোট-বড় সবধরনের আসবাব পাওয়া যায়।

ও/এসএ/