শুরু হলো জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

Published: Tue, 23 Jun 2020 | Updated: Tue, 23 Jun 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : শিক্ষার্থীদের আইসিটি ও প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তোলা ও তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতা যাচাই করার জন্য শুরু হলো জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২০। কোভিড-১৯-এর বর্তমান পরিস্থিতিতে এই আয়োজনের কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে।

শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে ২০১৫ সাল থেকে এই কার্যক্রম চলছে। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ, অনলাইন ও অনসাইট প্রোগ্রামিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা এবং প্রোগ্রামিং ক্যাম্পসহ বিভিন্ন আয়োজন করা হয়ে থাকে।

২০২০ সালের আয়োজনে থাকছে অনলাইন প্রস্তুতি প্রতিযোগিতা, অনলাইন মহড়া প্রতিযোগিতা, অনলাইন বাছাই প্রতিযোগিতা ও জাতীয় প্রতিযোগিতা। গত সোমবার এই আয়োজনের উদ্বোধনী পর্ব অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বিশ্বব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞের চাহিদা বাড়ছে। বিশ্বের দরকার রোবটিক্স, কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তা, মেশিন লার্ণিং নিয়ে কাজ করতে পারে এমন প্রোগ্রামার। বর্তমান প্রোগ্রামিং বিশ্বের রথি-মহারথীরা ছোটবেলা থেকে প্রোগ্রামিং করেছেন। এইজন্য ২০১০ সাল থেকে হাইস্কুলে আইসিট পাঠ্য করার পাশাপাশি সাড়ে আট হাজার স্কুলে শেখ রাসেল ল্যাবরেটির তৈরি করা হয়েছে। বিশ্বমানের প্রোগ্রামার হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে হলে ছোটবেলা থেকেই শুরু করতে হবে।

বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে শিক্ষাবিদ ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করলেই তারা অনেক কিছু করে ফেলতে পারে। এর পাশাপাশি যদি তাদের জন্য কিছু করা যায় তাহলে কাজটা অনেকখানি এগিয়ে যায়।

এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব এবং স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন) মোহাম্মদ এনামুল কবির। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান। প্রতিযোগিতায় নিবন্ধন করতে হবে http://online.nhspc.org ঠিকানায়। রেজিস্ট্রেশন চলবে ২৪ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত।

ও/এসএ/