রাবি ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ববির ৩ ছাত্র বহিষ্কার

Published: Fri, 14 Feb 2020 | Updated: Fri, 14 Feb 2020

রাবি প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় সম্পৃক্ততার অভিযোগে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) ৩ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার ড. মো. মহিউদ্দীন স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ ঘোষণা করা হয়। 

বহিষ্কৃতরা হলেন আইন ও মানবাধিকার বিভাগের ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী বায়েজিদ আহমেদ প্লাবন, ইকতিয়ার রহমান রাফসান ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৭ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী তারেক মাহমুদ জয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অতি সম্প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রীর শ্লীলতাহানীর গুরুতর অভিযোগে মামলা হয়েছে। মামলাটি বিচারাধীন থাকার বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। উল্লিখিত ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের নিম্নলিখিত শিক্ষার্থীদের ছাত্রত্ব সাময়িকভাবে বাতিল করা হলো।

বিষয়টি তদন্তে ইংরেজি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক শহীদুর রহমানকে প্রধান করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একটি কমিটি গঠন করে। কমিটি অভিযোগের সত্যতার বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে নিশ্চিত করে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮ টার দিকে গল্প করার কথা বলে শারুদ তার বান্ধবীকে কাজলা সাঁকপাড়া এলাকায় তার ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়। এসময় তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে শারুদ। এমনকি পূর্বপরিকল্পিতভাবে কৌশলে শারুদের বন্ধু বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যায়ের আইন পড়ুয়া প্লাবন সরকার, রাফসান, কাজলা এলাকার জয়, জীবন ও বিশাল মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে।

ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ শেষে ভুক্তভোগীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে তারা। পরে টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে গভীর রাতে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। পুরো ঘটনাটি পরিবারের কাছে জানালে ২৭ জানুয়ারি দুপুরে মা-বাবার সঙ্গে মতিহার থানায় যান ভুক্তভোগী। ভুক্তভোগী নিজেই বাদী হয়ে ছয় জনকে আসামী করে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন।

ও/ডব্লিউইউ