প্রেমের ফাঁদে মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষণ, ঈশ্বরগঞ্জে পুলিশ সদস্য আটক

Published: Wed, 16 Sep 2020 | Updated: Wed, 16 Sep 2020

নীলকন্ঠ আইচ মজুমদার , ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : জেলার ঈশ্বরগঞ্জে দশম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের  করেছেন। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে আটক করে কোর্টে সোপর্দ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, রাজীবপুর ইউনিয়নের বৃ-দেবস্থান গ্রামের ইছহাক আলীর মেয়ে স্থানীয় ইউনুছিয়া দাখিল মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার পথে রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত আজিজুল হকের পুত্র গাজীপুর মেট্রোপলিটনে কর্মরত পুলিশ কন্সটেবল ইজাদুল হক রতন (২১) প্রায়ই প্রেমের প্রস্তাব দিত। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীর সাথে ইজাদুলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

কর্মস্থলে থেকে ওই ছাত্রীর সাথে ইজাদুল ফোনে ও ফেসবুকে সবসময় যোগাযোগ রক্ষা করত। মঙ্গলবার রাতে ইজাদুল হক ওই ছাত্রীর সাথে দেখা করতে তাদের বাড়ি যায় এবং ফোনে ডেকে বাড়ি থেকে বের করে পাশের এক নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

ধর্ষিতা তাকে বিয়ে করার জন্য বললে ইজাদুল বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করে কেটে পড়তে চাইলে ধর্ষিতার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ধর্ষক ইজাদুলকে আটক করে ছাত্রীর পরিবারের হাতে তুলে দেয়।

ছাত্রীর পিতা বিষয়টি ইজাদুলের অভিভাবককে জানালে তারা বিয়ের পরিবর্তে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। পরে ঘটনাটি ঈশ্বরগঞ্জ থানাকে অবহিত করলে পুলিশ অভিযুক্ত ইজাদুলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান আকন্দ জানান, ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। 

ও/এসএ/