কম ঘুমে বাড়ে আলঝেইমার ঝুঁকি

Published: Tue, 15 Sep 2020 | Updated: Tue, 15 Sep 2020

অভিযাত্রা ডেস্ক : যারা রাত ১০টায় ঘুমাতে যায় এবং ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা ঘুমায় তাদের আলজেইমার রোগের (এডি) ঝুঁকি কম। চীনে এক সমীক্ষায় এ কথা বলা হয়। এডি একটি ক্রনিক ব্যাধি, এতে স্মৃতিশক্তি বিনষ্ট হয় এবং অন্যান্য মানসিক কার্যক্রম ব্যাহত হয়।

আলজেইমার রোগের সৃষ্টিতে প্রধান ভূমিকা রাখে অ্যামাইলয়েড বিটা প্রোটিন। প্রোটিনের প্রবণতা হচ্ছে জোট বেধে ফলক তৈরি করা, অ্যামাইলয়েড বিটার উৎপাদন ও সক্রিয়তার ভারসাম্যের অভাবে এরা মস্তিষ্কে ফলক তৈরি করে এবং নিউরনের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করে। এর ফলে নিউরন নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে অথবা মস্তিষ্কেও অন্যান্য কোষ থেকে কোনো সংকেত গ্রহণ করতে পারে না এবং নিউরন মারা যায়।

ফুদান ইউনিভার্সিটি এবং কুইংদাও ইউনিভার্সিটির গবেষকরা ৪০ থেকে ৮৮ বছর বয়সের ৭৩৬ জনের ওপর এই সমীক্ষা চালান। গবেষকরা সমীক্ষায় অংশগ্রহনকারীদেও সেরিব্রোস্পাইরাল ফ্লুইডে অ্যামাইলয়েড বিটার স্তর পরিমাপ করেন এবং তাদেও ঘুমের অভ্যাস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন।

আলজাইমার অ্যান্ড ডিমেনশিয়া জার্নালে প্রকাশিত গবেষকদের এই রিপোর্টে বলা হয়, তারা দেখেছেন রাতের ঘুমের অভ্যাসের সঙ্গে আলজেইমারের ইউ আকারের ( হ্রাস বৃদ্ধিও সম্পর্ক) সম্পর্ক রয়েছে এবং এতে সেরিব্রোস্পাইরাল ফ্লুইডে অ্যামাইলয়েড বিটার তারতম্য ঘটে।

এতে দেখা যায়, রাতে যারা চার ঘণ্টার কম অথবা ১০ ঘণ্টার বেশি ঘুমায় তাদের অ্যামাইলয়েড বিটার পরিমাণ বেশি থাকে। অন্যদিকে যারা রাত ১০টায় ঘুমাতে যায় এবং ছয় থেকে সাত ঘণ্টা ঘুমায় তাদের অ্যামাইলয়েড বিটার পরিমাণ সর্বনিম্ন পর্যায়ে থাকে। সমীক্ষায় অংশ নেয়া নারীদের মধ্যে যারা দিনের বেলায় ঘুমানোর কথা বলেছেন, তাদেও ক্ষেত্রে অ্যামাইলয়েড বিটার পরিমাণ বেশী দেখা গেছে। এই রিপোর্টে বলা হয়,তারা গবেষণায় ঘুমের সঙ্গে আলজেইমারের সম্পর্ক পেয়েছেন।

ও/এসএ/